চিংড়ির কাবাব রেসিপি

চিংড়ির কাবাব রেসিপি

চিংড়ির কাবাব রেসিপি অনেকেরই দরকার হয়। কারন বিভিন্ন অনুষ্ঠানে না ঈদের সময় গরু মুরগি খাসি / ছাগল তো থাকেই। তবে যারা মাছ পছন্দ করেন তারা সবার আগেই চিংড়ি মাছ এর কথা ভাবেন। কারন এই মাছ অতিথি আপ্যায়ন করার জন্য একবারেই উপযুক্ত আর যেহেতু কাটা নেই তাই ছোট বড় সবাই খুব পছন্দ করে। চলুন তাহলে জেনে নেই চিংড়ি মাছের কাবাব রেসিপি।

চিংড়ির কাবাব রেসিপি

চিংড়ির কাবাব রেসিপি
চিংড়ির কাবাব রেসিপি
যা যা লাগবে

( ১ ) ১ কাপ চিংড়ি মাছের কিমা

( ২ ) ১ টেবিল চামচ কাঁচা মরিচ কুচি

( ৩ ) ১ টেবিল চামচ ধনে পাতা কুচি

( ৪ ) পরিমান মতো সেদ্ধ আলু

( ৫ ) পরিমান মতো কর্নফ্লাওয়ার

( ৬ ) পরিমান মতো ব্রেডক্রাম ( টোস্ট বিস্কুটের গুঁড়া )

( ৭ ) পরিমান মতো টমেটো সস

( ৮ ) ২ টেবিল চামচ পেঁয়াজ কুচি

( ৯ ) পরিমান মতো লবন

( ১০ ) ২ টি ডিম

যেভাবে বানাতে হবে

প্রথমে ডিম, ব্রেডক্রাম ও তেল বাদ দিয়ে অন্য সব উপকরণ এক সাথে ভালো ভাবে মিশিয়ে নিন।

তারপরে সেই মিশ্রণটি আপনার পছন্দের মতো আকারের বানিয়ে নিন।

সবগুলো আপনার পছন্দ মতো আকারের বানানো হয়ে গেলে একটি একটি করে নিয়ে প্রথমে ১ বার ডিমে ডুবিয়ে নিন। মানে ভালো ভাবে ডিমে মাখাবেন। তবে আস্তে ধীরে করবেন যেনো আপনার কাবাবের আকার নষ্ট না হয়।

ডিম মাখানো হয়ে গেলে ব্রেডক্রাম ভালো ভাবে মেখে নিন কাবাবের চারিদিকে। আগে ডিম মাখতে হয় কারন ডিম মাখানোর পরে ব্রেডক্রাম মাখালে ব্রেডক্রাম ভালো ভাবে কাবাবের সাথে লেগে থাকবে। তেলে ভাজার সময় আলগা হয়ে যাবে না ব্রেডক্রাম।

এবার ডুবো তেলে ভেজে নিন। সাধারণত ডুবো তেলে ভাজতে গেলে অনেক তেল লাগে। তবে কম তেলে ভাজলে ও হবে, কিন্তু পুড়ে যেতে পারে ভাজার সময়। আর ডুবো তেলে না ভাজলে কাবাবের উপরে নিচে ভাজা হলেও সাইডে ভাজা হবে না ভালো করে।

যদি আপনার তেল কম দিয়ে ভাজার ইচ্ছা থাকে তাহলে ছোট কোনো একটা কিছুতে ভাজলে ভালো হয়। এতে কম তেলে ডুবো ডুবো করে ভাজা যাবে।

ভাজা হয়ে গেলে গরম গরম পরিবেশন করুন মজাদার ইচা মাছের কাবাব যা খুবই সুস্বাদু। ইচা মাছ বললাম এই জন্য যে অনেকে আবার আঞ্চলিক ভাষায় চিংড়ি মাছ কে ইচা মাছ বলে থাকে, তাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *