মুক্তিযুদ্ধের ট্যাংকের ধ্বংসাবশেষ উদ্ধার ( ভিডিও )

মুক্তিযুদ্ধের ট্যাংকের ধ্বংসাবশেষ উদ্ধার

মুক্তিযুদ্ধের ট্যাংকের ধ্বংসাবশেষ উদ্ধার করা হয়েছে। আপনারা ভিডিওতে দেখতে পাবেন ট্যাংকের ধ্বংসাবশেষ টি। স্থানীয়রা বলছেন যে পানি নিচে থেকে উদ্ধার করা হয়েছে ১৯৭১ সালে ব্যবহার করা ট্যাংকের ধ্বংসাবশেষ। আর অনেকের ধারণা এটি মিত্র বাহিনীর ট্যাংক ছিলো। চলুন তাহলে ভিডিও তে দেখে নেই সেই ট্যাংকের উদ্ধার করা ধ্বংসাবশেষ।

মুক্তিযুদ্ধের ট্যাংকের ধ্বংসাবশেষ উদ্ধার ( ভিডিও )

১৯৭১ সাল হচ্ছে এমন একটা সময় যে সময়টার কথা কোনো বাংলাদেশের মানুষ কখনো ভুলতে পারবে না আর ভুলে যাওয়া সম্ভব ও না। ৯ মাস যুদ্ধের পরে আমরা স্বাধীন বাংলাদেশ পেয়েছিলাম ১৯৭১ সালের ১৬ই ডিসেম্বর।

মুক্তিযুদ্ধের ট্যাংকের ধ্বংসাবশেষ উদ্ধার
মুক্তিযুদ্ধের ট্যাংকের ধ্বংসাবশেষ উদ্ধার

অবশ্যই ১৯৭১ সালের যুদ্ধে ব্যবহার করা যে কোনো কিছুই আমাদের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ আর ঐতিহাসিক। কারন এগুলোর মাধ্যমেই তো আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম জানতে পারবে কি হয়েছিলো ১৯৭১ সালে আমাদের দেশে।

সেই সময় যুদ্ধে ব্যবহার করা একটি ট্যাংকের কিছু অংশ পাওয়া গেছে পানির নিচে আর সেটা উদ্ধার করেছে সেখানকার স্থানীয় লোকেরা। আপনারা ভিডিওতে দেখেছেন যে একজন বর্ণনা দিচ্ছেন যে কিভাবে পানির নিচে তারা ট্যাংকের ধ্বংসাবশেষ দেখে উদ্ধার করে এবং সেখানকার প্রশাসন বা উচ্চ পর্যায়ের লোকদের খবর দিয়েছে।

আপনারা হয়তো একটু ভালো করে খেয়াল করলে দেখতে পাবেন যে ট্যাংকের ধ্বংসাবশেষের আশে পাশে অনেক তরুণ আর অনেক শিশুকে দেখা যাচ্ছে তুলনামূলক ভাবে বয়স্কদের চেয়ে বেশি।

এতে মনে হচ্ছে যে তরুণ ও শিশুদের মুক্তিযুদ্ধ বা মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নিয়ে যানার ইচ্ছাটা অনেক বেশি, কারন তারা বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধকে সামনে থেকে দেখেনি। তারা হয়তো জানতে চায়, যা জানে তার চেয়ে ও আরো অনেক বেশি জানতে চায়। আর আপনারা দেখেছেন যে একজন তরুণ এই মুক্তিযুদ্ধে ব্যবহার করা ট্যাংকের ধ্বংসাবশেষ সংরক্ষণের জন্য দাবি ও জানিয়েছে।

এছাড়া সেখানে উপস্থিত সবার দাবি যে এই ট্যাংকের ধ্বংসাবশেষ কোনো জাদুঘরে সংরক্ষণ করা হোক, আর সেই আনুযায়ী ব্যবস্থা ও গ্রহন করা হচ্ছে। তাই আশা করা যাচ্ছে যে খুব তাড়াতাড়ি আমাদের মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি টি সংরক্ষণ করা হবে কোনো জাদুঘরে আর সেটি যুগের পর যুগ আমাদের মুক্তিযুদ্ধের সাক্ষী হয়ে থাকবে।

প্রতিদিন তাজা খবর পেতে আমাদের Bangla News Paper ওয়েবসাইটে ভিজিট করতে ভুলবেন না যেনো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *