৪০ মন ওজনের গরু সিনবাদ এর দাম হাকানো হচ্ছে ১৮ লাখ !!!

৪০ মন ওজনের গরু সিনবাদ এর দাম হাকানো হচ্ছে ১৮ লাখ

৪০ মন ওজনের গরু সিনবাদ এর দাম হাকানো হচ্ছে ১৮ লাখ আর সম্পূর্ণ দেশি পদ্ধতিতে দেশি খাবার খাইয়ে দেশেই লালন পালন করা হয়েছে এই বিরাট বড় ষাঁড় টি। ষাঁড় পালক কোরবারনির ঈদে বিক্রি করার জন্যই প্রস্তুত করেছেন সিনবাদকে, চলুন আরো বিস্তারিত জেন নেই।

৪০ মন ওজনের গরু সিনবাদ এর দাম হাকানো হচ্ছে ১৮ লাখ !!!

৪০ মন ওজনের গরু সিনবাদ এর দাম হাকানো হচ্ছে ১৮ লাখ
৪০ মন ওজনের গরু সিনবাদ এর দাম হাকানো হচ্ছে ১৮ লাখ

কোরবানী মানেই গরু আর গরু, মাঝে মধ্যে ছাগল, উট, মহিষ আর দুম্বা। কারন বাংলাদেশে কোরবানির পশু হিসেবে গরুই সবার খুব পছন্দ।

আর এই পছন্দের যায়গা থেকে তৈরী হয় চাহিদা আর সেই চাহিদার কথা মাথায় রেখেই প্রতিবছর কিছু গরু ব্যবসায়ী বা খামারি অতি আদর যত্ন করে লালন পালন করে বড় বড় গরু যেই গরু গুলোকে লালন পালন করা হয় ধনী লোকেদের কথা মাথায় রেখে।

কারন সাধারণ মানুষ অবশ্যই ১৮ লক্ষ টাকার গরু কিনে কোরবানি দিবেন না। ছবিতে আপনারা যেই গরুটিকে দেখতে পাচ্ছেন সেই গরুটির নাম রাখা হয়েছে সিনবাদ। গত কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশে বড় বড় কোরবানির গরু গুলোকে আরো জনপ্রিয় করার জন্য নাম দেয় হয়। সেই ধারাবাহিকতায় এই ৪০ মন ওজনের গরুটির নাম দেয়া হয়েছে সিনবাদ।

সিনবাদ নামের এই গরুটির উচ্চতা ৬ ফুট, লম্বায় ৮ ফুট ৫ ইঞ্চি। জানা গেছে ৩০ জুলাই পর্যন্ত এই বিরাট বড় কোরবানীর গরু ২০১৮ সালের বড় ষাঁড় টির ওজন ছিলো ১৬০৮ কেজি বা ১.৬ টন!

গরুটি দেখতে একেবারেই অস্ট্রেলিয়ান গরুর মতো তবে উপরের ছবিতে হয়তো গরুটি সাইজে তেমন বড় মনে হচ্ছে না। তাই আমরা আরো কিছু ছবি দিচ্ছি নিচে।

৪০ মন ওজনের গরু সিনবাদ এর দাম হাকানো হচ্ছে ১৮ লাখ
৪০ মন ওজনের গরু সিনবাদ এর দাম হাকানো হচ্ছে ১৮ লাখ
৪০ মন ওজনের গরু সিনবাদ এর দাম হাকানো হচ্ছে ১৮ লাখ
৪০ মন ওজনের গরু সিনবাদ এর দাম হাকানো হচ্ছে ১৮ লাখ

হয়তো ১৮ লাখ টাকায় বিক্রি হবে না এ গরুটি, আবার হয়তো বিক্রি হতে ও পারে। আল্লাহই ভালো জানে কতো দামে বিক্রি হবে এই অস্ট্রেলিয়ান ষাঁড় টি যাকে লালন পালন করতে অনেক টাকা খরচ করেছেন গরু পালক।

পরের দুটি ছবির প্রথম ছবিটি তে গরুর ঘরের ভেতরে একটু খেয়াল করতে দেখতে পাবেন কলা আপেল সহ আরো অনেক রকমে ফল ঝুলানো আছে। এই ফল গুলো কিন্তু গরুর খাবার জন্যই।

আমরা জানি না ফল খাওয়ালে কি গরুর কোনো বিশেষ উপকার হয় কিনা, তবে হয়তো দামী দামী ফল খাইয়ে অযথা গরুর পেছনে বেশি খরচ না করলে ও হয়। এর বদলে ঘাস ও অন্য দানাদার খাবার খাইয়ে ই এর চেয়ে ও আরো অনেক বড় বড় গরু লালন পালন করা সম্ভব।

সব সময় সবাই মনে রাখবেন যে কুরবানির পশু কোরবানি করবেন শুধু মাত্র আল্লাহকে খুশি করার জন্য, অবশ্যই লোক দেখানো কোরবানী আল্লাহ কবুল করেন না।

আরো Korbanir Goru 2018 এর খবর পেতে চোখ রাখুন Bangla News paper ওয়েবসাইটে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *